FacebookMySpaceTwitterDiggDeliciousStumbleuponGoogle BookmarksRedditNewsvineTechnoratiLinkedinMixxRSS Feed

হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে বিনোদন চ্যানেল এইচবিও

হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে বিনোদন চ্যানেল এইচবিওহ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছে জনপ্রিয় বিনোদন চ্যানেল এইচবিও। হ্যাকাররা এইচবিও’র কম্পিউটার সিস্টেম হ্যাক করে মুক্তির অপেক্ষায় থাকা বেশ কিছু জনপ্রিয় টিভি ধারাবাহিকের কয়েকটি পর্ব অনলাইনে ফাঁস করে দিয়েছে।

নিউ ইয়র্ক পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, এইচবিও’র কম্পিউটার সিস্টেম হ্যাক করে ১.৫ টেরাবাইট তথ্য চুরি করার দাবি করেছে হ্যাকাররা। হ্যাকিংয়ের ঘটনাটি তারাই সর্বপ্রথম একটি বেনামি ই-মেইলের মাধ্যমে সাংবাদিকদের জানিয়েছে।

এইচবিও কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে হ্যাকিংয়ের শিকার হওয়া ও তথ্য চুরি যাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘আমরা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছি। এ ব্যাপারে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং সাইবার নিরাপত্তা সংস্থার সঙ্গে কাজ করছি। ডেটা সুরক্ষা এইচবিও’র একটি শীর্ষ অগ্রাধিকার এবং আমাদের কাছে থাকা ডেটার সুরক্ষার নিশ্চয়তায় আমরা আমাদের দায়িত্ব গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছি।’

হ্যাকাররা এইচবিও’র ‘বোলার্স’ ও ‘রুম-১০৪’ টিভি সিরিজের মুক্তির অপেক্ষায় থাকা এপিসোড অনলাইনে ফাঁস করে দিয়েছে। এছাড়াও ‘গেম অব থ্রোনস’ এর আপকামিং একটি এপিসোডের স্ক্রিপ্টও ফাঁস করা হয়েছে। শিগগির আরো কিছু ফাইল ফাঁস করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে হ্যাকাররা।

এইচবিও’র সিইও রিচার্ড সাইবার চুরির ঘটনা ই-মেইলের মাধ্যমে সব কর্মীদের জানিয়ে বলেন, ‘আমাদের মালিকানাধীন বেশ কিছু টিভি এপিসোড ও স্ক্রিপ্ট চুরি গেছে। অবৈধ এই অনুপ্রবেশ স্পষ্টতই আমাদের সকলের জন্য বিভ্রান্তিকর, বিরক্তিকর এবং বিপজ্জনক। বাজে এ ঘটনার পুনরাবৃত্তি ভবিষ্যতে যেন না ঘটে সেজন্য সিনিয়র নেতৃত্ব, নিজস্ব দক্ষ প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ দল এবং বাইরের সাইবার বিশেষজ্ঞ দল যৌথভাবে কাজ করছে।’

বিনোদন জগতে এর আগে হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছিল আরো একটি বড় সংস্থা- সনি পিকচার্স। সনি পিকচার্স হ্যাক হওয়ার মাধ্যমে বিশ্ববাসী দেখেছে হ্যাকারদের হাতে বিশ্বের অন্যতম সবচেয়ে প্রভাবশালী চলচ্চিত্র প্রতিষ্ঠানটির বেকায়দায় পড়া ও বিব্রত হওয়া। ২০১৫ সালে সনি পিকচার্সের কম্পিউটার সিস্টেম হ্যাক করে কয়েক লাখ নথি, প্রায় ২ লাখ ই-মেইল, নতুন সিনেমার স্ক্রিপ্ট, নারী-পুরুষ তারকাদের পারিশ্রমিক বৈষম্যসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও বিব্রত বিষয়গুলো অনলাইনে ফাঁস করে দিয়েছিল হ্যাকাররা। এ ঘটনায় ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছিল সনি পিকচার্স।